সাইফের দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি

এই কদিন আগে শ্রীলঙ্কা সফরে ‘এ’ দলের হয়ে দারুণ একটি সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) শুধু সে ধারাবাহিকতা ধরে রাখেননি, অসাধারণ একটি ডাবল সেঞ্চুরি করে সবার প্রশংসা কুড়িয়েছেন তরুণ ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান।

আজ শুক্রবার জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম স্তরের ম্যাচে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি করেন ঢাকা বিভাগের ব্যাটসম্যান সাইফ। তাঁর অপরাজিত ২২০ রানের সুবাদে রানের পাহাড় গড়ে ঢাকা। তারা ৮ উইকেটে ৫৫৬ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে। জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ২ উইকেটে ৭১ রান তুলেছে রংপুর বিভাগ। তারা পিছিয়ে ৪৮৫ রানে।

গতকাল ম্যাচের প্রথম দিনই ১২০ রানের ইনিংস খেলে আহত হয়ে অবসর নেন সাইফ। তাঁর ব্যাটিং নৈপুণ্যে প্রথম দিন শেষে ৯০ ওভারে ৪ উইকেটে ৩১৪ রান করেছিল ঢাকা বিভাগ। চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিনে ব্যাট হাতে নেমে আগের দ্রুত ফেরেন শুভাগত হোম ও সুমন খান। শুভাগত ১৭ ও সুমন ২৪ রান করে আউট হন।

এরপর আবার ব্যাট হাতে নেমে অধিনায়ক নাদিফ চৌধুরীর সঙ্গে ১০০ রানের জুটি গড়েন সাইফ। ৬টি চার ও ২টি ছক্কায় ৭৫ বলে ৬১ রান করেন তিনি। সে ধারাবাহিকতায় দারুণ একটি ডাবল সেঞ্চুরি করেন তিনি। তাঁর ২২০ রানের ইনিংসে ১৯টি চার ও ৪টি ছক্কায় মার রয়েছে। আর ৩২৯ বল মোকাবিলা করেন। ৪৮৮ মিনিট ব্যাট করে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলেন সাইফ। এছাড়া জয়রাজ ২৬ ও নাজমুল অপরাজিত ১৮ রান করেন। রংপুরের হয়ে সোহরাওয়ার্দি শুভ ও সঞ্জিত সাহা ৩টি করে উইকেট নেন।

ঢাকা বিভাগের ইনিংস শেষে ব্যাট হাতে নেমে ২ উইকেট হারিয়ে বসেছে রংপুর বিভাগ। উইকেটরক্ষক ও ওপেনার হামিদুল ইসলাম ৯ ও মাহমুদুল হাসান শূন্য রান করে ফিরেন। তবে অন্যপ্রান্তে রানের চাকা সচল রেখেছেন ওপেনার লিটন দাস। ৮টি চারে ৬৪ বল মোকাবিলা করে হাফসেঞ্চুরি তুলে ৫১ রানে অপরাজিত আছেন লিটন। নাঈম ইসলামের সংগ্রহ ৮ রান। রংপুরের পতন হওয়া দুটি উইকেটই নিয়েছেন সালাউদ্দিন শাকিল। ৭ ওভার বল করে ১৬ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন তিনি।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত