‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’র অজানা ২১ তথ্য

বলিউডের অন্যতম ব্লকবাস্টার ছবি ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’। এখনও এই ছবি নিয়ে উন্মাদনা কম নয়। ২১ বছর আগে ১৯৯৮ সালের ১৬ অক্টোবর মুক্তি পেয়েছিল শাহরুখ খান, কাজল, রানি মুখার্জী অভিনীত রোমান্টিক প্রেমের গল্পের এই ছবি।

‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’-তে শাহরুখ-কাজলের বন্ধুত্ব, প্রেম দেখে হিল্লোল উঠেছিল সিনেমাপ্রেমীর মনে। ভারতীয় সিনেমা হিসেবে রেকর্ড দিন চলার সব রেকর্ড ধুয়ে-মুছে দিয়েছিল করণ জোহার পরিচালিত এই ছবি। ২১ বছর বাদে জানা যাক সে ছবি ঘিরে ২১টি অজানা তথ্য।

# শাহরুখ আর কাজল যখন ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে’ ছবিতে কাজ করেন, তখন সে ছবির সহকারী পরিচালক ছিলেন করণ। সেই সময়ই শাহরুখ-কাজল করণকে কথা দেন, করণ কখনও ছবি করলে, সেই ছবির অবশ্যই জুটি হবেন শাহরুখ-কাজল।

# ছবিতে রানি মুখার্জীর চরিত্রটির নাম ‘টিনা’। কিন্তু প্রথমে চরিত্রটি করার কথা ছিল টুইঙ্কেল খান্নার। সে কারণেই করণ ওই চরিত্রের নাম রেখেছিলেন ‘টিনা’। কিন্তু টুইঙ্কেল এই চরিত্র করতে চাননি।

# করণ এরপর এই চরিত্র নিয়ে যোগাযোগ করেন তাব্বু, ঊর্মিলা মাতণ্ডকর এবং ঐশ্বরিয়া রাইয়ের সঙ্গে। এদের মধ্যে ঐশ্বরিয়া ভদ্রতাবশত করণকে কল ব্যাক করেন। যদিও চরিত্রটি করতে রাজি হননি।

# ‘টিনা’ চরিত্রের জন্য করণকে রানি মুখার্জীর নাম প্রস্তাব করেন আদিত্য চোপড়া। যখন রানি এই ছবির শুটিং করেন তখন তার বয়স ১৯।

# ছবিতে আমান মেহরার চরিত্রে প্রথমে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল সইফ আলি খানকে। সাইফ রাজি না হওয়ায়, তার জায়গায় আসেন সালমান খান।

# ছবির শেষ দৃশ্য শাহরুখের একেবারেই পছন্দ ছিল না। কারণ ছবির শেষে অত বেশি কান্না তার একেবারেই ভালো লাগেনি।

# ছবিতে শাহরুখের ওয়ার্ডড্রোবের রংচঙে পোশাক দর্শকের কাছে দারুণ হিট হলেও, শাহরুখ পরে জানিয়েছিলেন, সেই পোশাকগুলো খুব টাইট ছিল।

# ছবির খুব জনপ্রিয় একটা ডায়ালগ ছিল, ‘তুসি যা রহে হো? ইয়ুসি না যাও’। এই ডয়ালগ ছবিতে সর্দার শিশুশিল্পী পারজান দস্তুরের মুখে শুনতে পাওয়া গেলেও, আসলে তা ডাব করে আরেক শিশুশিল্পী কাইভাল্য চেড্ডা।

# ছবির ছোট্ট সর্দার পারজানকে খুব পছন্দ করতেন শাহরুখ। তার ছোট্ট ছেলে আরিয়ান যখন সেটে আসত, তখন শাহরুখ তাকে পারজানের মতো পোশাকে সাজাতেন।

# ছবির আরেক শিশুশিল্পী ‘অঞ্জলি’ সানা সাইদ কিছুতেই কান্নার দৃশ্যে গ্লিসারিন ব্যবহার করতে চাইত না। ফলে কান্নার দৃশ্যে করণের কাজ ছিল তাকে কাঁদানো।

# ছবিতে একবার সাইকেল চালাতে গিয়ে কাজল গুরুতরভাবে আহত হয়েছিলেন। সেই মুহূর্তে কিছু দিন তার স্মৃতিভ্রংশ হয়েছিল। এমনকী সেই সময় তিনি তার তখনকার প্রেমিক, এখনকার স্বামী অজয় দেবগণকে চিনতে পারছিলেন না।

# এই ছবিতে শাহরুখ খান ছিলেন এক ব্যবসায়ী। যদিও করণ জানিয়েছেন, সেই সময় শাহরুখের ব্যবসা সম্পর্কে ধারণাই ছিল না।

# যখন কাজলের কিছুই মনে পড়ছিল না, সেই সময় শাহরুখ সারাক্ষণ কাজলকে বুঝিয়ে গিয়েছিলেন যে, কাজল একজন জুনিয়র শিল্পী।

# ছবির টাইটেল হিট গান ‘তুম পাশ আও’। গানটির সুর যুগল হংসরাজ তৈরি করে তুলে দিয়েছিলেন করণ জোহারের হাতে।

# ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ আসলে ছিল বলিউডের জনপ্রিয় আর্চিস কমিকসের অনুকরণে। শাহরুখের চরিত্র গড়ে উঠেছে আর্চির অনুপ্রেরণায়। কাজল ‘বেটি’ এবং রানি ‘ভেরোনিকা’র অনুপ্রেরণায়।

# যখন ছবির সামার ক্যাম্পে আবার শাহরুখ-কাজলের দেখা হয়, ছবির সেই দৃশ্যে পরিচালক করণ জোহার এত বেশ আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন যে, দৃশ্য করতে করতে তিনি কেঁদে ফেলেন।

# গানের দৃশ্য ‘সাজনজি ঘর আয়ে’ যখন শ্যুট করা হচ্ছিল, তখন যাদের নিয়ে সেই গান, সেই সালমান খান আর কাজলের সম্পর্ক খুব খারাপ।

# ছবির বাস্কেটবল খেলার দৃশ্যে শাহরুখ এবং কাজল জাম্প করার জন্য ট্রাম্পোলিন ব্যবহার করতেন।

# ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ ছবিতে করণের মা হিরু জোহারও অভিনয় করেছিলেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত