এবার ভারতকে প্রথমবারের মত হোয়াইটওয়াশ করতে চান লিটন

প্রকাশিত: ডিসে ৭, ২০২২ / ১০:৫৪অপরাহ্ণ
এবার ভারতকে প্রথমবারের মত হোয়াইটওয়াশ করতে চান লিটন

নিয়মিত অধিনায়ক তামিম ইকবাল সিরিজ শুরুর আগ মুহূর্তে ইনজুরিতে ছিটকে পড়ায় দায়িত্বভার এসে পড়েছিল লিটন দাসের ওপর। ওয়ানডেতে অধিনায়কত্বের অভিষেক।

সেটিও আবার শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে। রোমাঞ্চ যেমন ছিল, চ্যালেঞ্জও কম ছিল না। তবে সে পরীক্ষায় ভালোভাবেই উৎরে গেলেন লিটন। টানা দুই জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ।

ওয়ানডেতে বাংলাদেশ শক্তিশালী। তবে প্রতিপক্ষ যখন ভারতের মতো দল, তখন সিরিজ জয়টা পেয়েছে ভিন্ন মাত্রা। লিটন যেমন বলছেন, স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো ব্যাপার। ম্যাচ শেষে এক প্রতিক্রিয়ায় লিটন বলেন, অধিনায়ক হিসেবে সিরিজ জয়, স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো।

ম্যাচজয়ের নায়ক মিরাজ-মাহমুদউল্লাহকেও ভুললেন না অধিনায়ক। বলেন, মিরপুরে ২৪০-এর মতো স্কোর যথেষ্ট মনে হয়েছিল। কিন্তু আমরা শুরুতেই ৬ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে মিরাজ ও মাহমুদউল্লাহ অসাধারণ খেলেছে।

সিরিজের শেষ ম্যাচ আগামী ১০ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে। এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জয়ের পর এবার চট্টলাতেও জিততে চান বাংলাদেশ কাপ্তান।

আরও পড়ুন: ম্যাচসেরার পুরস্কার হাতে যা বললেন মিরাজ

২০১৫ সালে ভারতের বিপক্ষে প্রথম দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ। সাত বছর পর আবারও ঘরের মাঠে সিরিজ জিতল। ঢাকার পর এবার চট্টগ্রামে শেষ ম্যাচ জিততে পারলে প্রথমবারের মতো কোহলি-রোহিতদের হোয়াইটওয়াশের স্বাদ দেবে বাংলাদেশ।

এদিকে, প্রথম ম্যাচের মতো দ্বিতীয় ম্যাচেও ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। বুধবার (৭ ডিসেম্বর) মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৬৯ রানের মাথায় ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল বাংলাদেশ।

আট নম্বরে নেমে অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দিয়ে মিরাজ গড়েন ১৪৮ রানের রেকর্ড জুটি। পরে নাসুম আহমেদের সঙ্গে ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে দলকে শক্ত ভিত এনে দেন।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডের মতো মিরাজ এদিনও ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে ৮ চারের সঙ্গে ৪টি দৃষ্টিনন্দন ছয়ে ৮৩ বলে ১০০ রানের রূপকথার মতো ইনিংস খেলে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের এটি তার প্রথম সেঞ্চুরি। আটে নেমে ওয়ানডেতে বাংলাদেশেরও প্রথম সেঞ্চুরি।

আরও পড়ুন: ভারতের বিপক্ষে রোমাঞ্চের ম্যাচে সিরিজ জিতল বাংলাদেশ

এছাড়া বল হাতেও সমান কার্যকর ছিলেন মিরাজ। দলের গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ব্রেকথ্রু এনে দেন। ফেরান লোকেশ রাহুল ও শ্রেয়াস আইয়ারকে। এমন অনবদ্য পারফরম্যান্সের পর দ্বিতীয় কাউকে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেয়ার প্রশ্নই ছিল না।

ম্যাচসেরা হয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় মিরাজ বলেন, গত কয়েক বছরে কঠোর পরিশ্রম করে গেছি। বিশেষ কয়েকটি জায়গায় জোর দিয়েছি। এক্ষেত্রে কোচের সহায়তাও পেয়েছিলেন বলে জানান টাইগার এ অলরাউন্ডার।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন