সৌদি ভ্রমন ভিসা ৪৯ দেশের জন্য

প্রথমবারের মতো সৌদি সরকার বিদেশিদের ভ্রমণ ভিসা দেয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে। সৌদি আরবের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রধান আহমেদ আল খতিব বলেছেন, বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের জন্য সৌদি আরবের দ্বার উন্মুক্ত হওয়া আমাদের জন্য এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত।

আহমেদ বলেন, আমাদের রয়েছে ইউনেসকোর ৫টি বিশ্ব ঐতিহ্য (ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট), আকর্ষণীয় সংস্কৃতি ও মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা বা স্থানগুলো দেখে দর্শনার্থীরা মুগ্ধ হবেন। সৌদি আরবের প্রভাবশালী গণমাধ্যম আল আরাবিয়া জানায়, নতুন চালু করা এ ট্যুরিস্ট ভিসার মেয়াদ থাকবে এক বছর। এ সময়ের মধ্যে প্রতিটি প্রদেশে সর্বাধিক ৯০দিন থাকতে পারবে পর্যটকরা। এক বছরের মধ্যে এ ভিসায় সর্বমোট ১৪০দিন থাকতে পারবে। এর বেশি থাকার অনুমতি দেয়া হবে না। পর্যটকরা ৩ উপায়ে ভিসা পেতে পাবেন পর্যটকরা। এর মধ্যে (১) ওয়েবসাইটে অনলাইন নিবন্ধনের মাধ্যমে। (২) সীমান্ত ক্রসিং করার সময়ও ভিসা নিতে পারবেন। বিমানবন্দরগুলিতে ভিসা প্রাপ্তির সুযোগসুবিধা দেয়া হবে। (৩) অনুমোদিত দেশগুলিতে সৌদি দূতাবাস ও কনস্যুলেটের প্রতিনিধিদের মাধ্যমেও ভিসা পাবেন।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ভিশন ২০৩০, নামক সংস্কার কর্মসূচির অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু পর্যটনশিল্প। তাই সৌদি সরকার পর্যটন ভিসা (টুরিস্ট ভিসা) দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সৌদি আরবের তেল স্থাপনায় হামলার পর বৈশ্বিক বাজারে তেলের দামে বেশ প্রভাব পড়েছে। তাই হামলার মাত্র ২ সপ্তাহ পরেই এ ঘোষণা এলো।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত