নারায়ণগঞ্জে ‘জঙ্গি আস্তানা’, শিক্ষক-ব্যাংক কর্মকর্তাসহ আটক ৩

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাংলাদেশ ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) জয়নাল আবেদিনের বাড়ি ঘেরাও করে নারীসহ তিনজনকে আটক করেছে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা।

সোমবার ভোররাত থেকে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা ওই বাড়িটি ঘিরে রাখে। এ সময় দম্পতিসহ একই পরিবারের তিনজনকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক ফরিদউদ্দিন রুমি (২৭), কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জামালউদ্দিন রফিক (২৩) ও ফরিদউদ্দিনের স্ত্রী অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা জান্নাতুল ফোয়ারা অনু (২৭)। এদের মধ্যে রফিক ও রুমি বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডিজিএম জয়নাল আবেদীনের ছেলে।

এদিকে আটক ফরিদ উদ্দিন রুমি ও জালালউদ্দিন রফিক জেএমবির সদস্য বলে জানিয়েছেন কাউন্টার টেরোরিজমের প্রধান মনিরুল ইসলাম। সোমবার দুপুরে অভিযান নিয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

জানা গেছে, দুপুর ১২টা ৫৮ মিনিটে ওই বাড়ি থেকে একটি বোমা বিস্ফোরণের বিকট শব্দ পাওয়া যায়। দুপুর ১টা ১০ মিনিটে আরও একটি বোমা বিস্ফোরণের বিকট শব্দ পাওয়া যায়। বিস্ফোরণের শব্দে পুরো এলাকা কেঁপে উঠে। দুপুর ১টা ২৪ মিনিটে আরও একটি বিস্ফোরণের শব্দে এলাকা কেঁপে উঠে। এবং সর্বশেষ ২টা ১১ মিনিটে চতুর্থ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।মনিরুল ইসলাম বলেছেন, এ বাড়িটিতে বিস্ফোরণ ও বোমা তৈরির কিছু সরঞ্জাম রয়েছে যা বিগত সময়ে ঢাকায় যেসব বিস্ফোরণে উদ্ধার করা হয়েছে তার সঙ্গে মিল রয়েছে। অভিযানে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক সরঞ্জামের আলামত পাওয়া গেছে।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সহকারী কমিশনার মো. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমাদের বোমা নিস্ক্রিয়কারী দলের সদস্যরা কাজ করছেন। প্রাথমিকভাবে আমরা যেটুকু তথ্য পেয়েছি, ওই বাড়ির ভেতরটা ল্যাবরেটরির মত সাজানো। ভেতরে ইমপ্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইসও (আইইডি) রয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আসলাম হোসেন জানান, সোমবার ভোররাত থেকে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ফতুল্লার তক্কার মক্কার মাঠ এলাকার জয়নাল আবেদীনের একটি টিনশেড বাড়ি ঘিরে রাখে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা। পরে জেলা পুলিশসহ বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত