পাহাড়ে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার

May 25, 2022 / 11:01pm
পাহাড়ে আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা রক্ষায় কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার

পাহাড়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখাসহ নিরাপত্তা রক্ষার জন্য কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপির নেতৃত্বে সরকারের উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল পার্বত্য জেলা রাঙামাটি সফর করছে। তারা বুধবার দুপুরে রাঙামাটি গিয়ে পৌঁছান এবং রাঙামাটির বরকলে তিন পার্বত্য জেলার এপিবিএন সদর দপ্তরের ভিত্তিপ্রস্তুর স্থাপন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সন্ধ্যায় পার্বত্য চট্টগ্রামের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তিন পার্বত্য জেলার শীর্ষ রাজনৈতিক নেতা, সামরিক বেসামরিক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে একাধিক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে মিলিত হন বলে জানা গেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে রয়েছেন- পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ, সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এসএম শফিউদ্দিন আহমেদ, র্যা ব মহাপরিচালক, বিজিবি মহাপরিচালক, পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজি) বেনজীর আহমেদ, এপিবিএন ব্যাটালিয়ন প্রধানসহ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা রয়েছেন।

তারা সন্ধ্যায় রাঙামাটি সার্কিট হাউজে একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ সভা শেষে রাত ৮টায় রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়িসহ তিন পার্বত্য আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিশেষ সভা’ শীর্ষক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে যোগ দেন।

জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ রুদ্ধদ্বার বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। এতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়কমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা, খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি, ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী পুনর্বাসন ও অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু নির্দিষ্টকরণ টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, তিন পার্বত্য জেলার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী, রাঙামাটি পৌরসভা মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরীসহ তিন পার্বত্য জেলার শীর্ষ রাজনৈতিক নেতা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিষয়ের পাশাপাশি পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন নিয়ে আলোচনা হয় বলে সভা সূত্রে জানা যায়।