ব্রেক্সিট: হাউস অব কমন্সে দ্বিতীয় চেষ্টাও ব্যর্থ বরিস জনসনের

হাউস অব কমন্সে দ্বিতীয়বারের মতো আগাম নির্বাচনের প্রস্তাব এনে এমপিদের ভোটাভুটিতে আবারও ব্যর্থ হয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ‘চুক্তিহীন ব্রেক্সিট’ বাস্তবায়নে আগাম নির্বাচন বাদে তেমন কোনো পথ দেখছেন না এই কনজারভেটিভ নেতা।

সোমবার (০৯ সেপ্টেম্বর) পার্লামেন্ট অধিবেশনের পাঁচ সপ্তাহের স্থগিতাদেশ শুরু হওয়ার আগ মুহূর্তে বরিস জনসনের এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির বিদ্রোহী এবং বিরোধীরা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, সোমবার বরিস জনসনের আগাম নির্বাচনের প্রস্তাবের পক্ষে সব মিলে ভোট দিয়েছেন মাত্র ২৯৩ জন এমপি। যে সংখ্যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম।

এর আগে ০৪ সেপ্টেম্বর ব্রেক্সিট পরিকল্পনায় ব্যর্থ হয়ে আগাম নির্বাচনের হুমকি কর্যকর করতে প্রথমবারের মতো প্রস্তাব এনেছিলেন জনসন। যে প্রস্তাবটি বিরোধী দল তো বটেই ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির বিদ্রোহী এমপিরাও নাকচ করে দেন। এরও আগে ০৩ সেপ্টেম্বর বিদ্রোহী ২১ এমপির ভোটে ব্রেক্সিট পরিকল্পনায় হেরে যায় করজারভেটিভ সরকার।

সোমবার থেকে আগামী ১৩ অক্টোবর পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে স্থগিত করা হয়েছে পার্লামেন্ট অধিবেশন। ১৪ অক্টোবর আবার বসবে অধিবেশন। সোমবার অধিবেশন শেষ হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে কমন্সে আগাম নির্বাচনের প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান হয়ে যায়।

জনসনের আগাম নির্বাচনের প্রথম প্রস্তাবে ভোট পড়ে ৩৫৪টি। এর মধ্যে পক্ষে পড়ে মাত্র ২৯৮ এমপির। বিপক্ষে ৫৬টি। কিন্তু প্রস্তাবটি পাস হওয়ার জন্য ভোট দরকার ছিল কমন্সের ৬৫০ সদস্যের মধ্যে দুই-তৃতীয়াংশ। অর্থাৎ আরও ১৩৬টি ভোট পক্ষে থাকলে হতো।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত