মুরাদ যা করেছ ছাত্রদল থেকে শিখেছে সবঃ হানিফ

প্রকাশিত: ডিসে ৮, ২০২১ / ১১:০৯অপরাহ্ণ
মুরাদ যা করেছ ছাত্রদল থেকে শিখেছে সবঃ হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ বলেছেন, ডা. মুরাদ হাসান যা করেছেন সব ছাত্রদল থেকে শিখেছেন। সেখান থেকে পাওয়া শিক্ষার ফল এটি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কোনো সৈনিক, শেখ হাসিনার প্রকৃত কর্মী এমন আচরণ করতে পারেন না।

বুধকার বিকালে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

হানিফ বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান এক সময় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক ছিলেন।

বিএনপি নেতা তারেক রহমান বিভিন্ন সময় এমন আচরণ করেছেন- বিএনপি এসবের রাজনীতিই করে। প্রতিহিংসার রাজনীতি থেকে তারা বের হতে পারেনি। তার বিরুদ্ধে দুই-একদিনের মধ্যে দলীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে তিনি বলেন, দেশের সব থেকে ব্যয়বহুল হাসপাতালে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে। তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য যেতে দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

কারণ তিনি একজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে দোষ শিকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করলে রাষ্ট্রপতি ক্ষমা করার পর বিদেশে চিকিৎসার জন্য যেতে পারবেন।

হানিফ বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিএনপি প্রেস ক্লাবের সামনে আন্দোলন করে, দেশব্যাপী অরাজকতা সৃষ্টি করে। কিন্তু রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চায় না। ক্ষমা না চাইলে তো কাজ হবে না। রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা চাইলে বিষয়টি হয়তো বিবেচনা হতে পারে। খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে পুঁজি করে বিএনপি রাজনীতি করতে চাইছে। দেশে অনেক উন্নত চিকিৎসা আছে। বেগম খালেদা জিয়া সেই চিকিৎসা পাচ্ছেন।

তিনি বলেন, তার ছেলে তারেকের বউ ডাক্তার। শুনেছি সে নাকি অনলাইনে শাশুড়িকে দেখে। কই ছেলে, ছেলের বউ তো কোনোদিন দেখতে এলো না। অবশ্য কোকোর বউ এসেছে। তারা তো আসে নাই। যাই হোক তবু বিএনপি এত দিন পর একটা সুযোগ পেয়েছে।

খালেদা জিয়ার অসুস্থতার এ দাবিতে তারা আন্দোলন করছে। খুব ভালো তারা আন্দোলন করুক। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী যতটুকু করার ছিল সেটা কিন্তু তিনি করেছেন।

ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) অ্যাডভোকেট হাফেজ আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারীর সঞ্চালনায় সভায় জাতীয় সংসদের হুইপ ও আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বে থাকা সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াসিকা আয়েশা খান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. আমিনুল ইসলাম আমিন, তৃণমূল নেতা মাহাবুবুল হক লিটন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন