নিষিদ্ধ ছবি দেখায় ১৪ বছরের কারাদণ্ড উত্তর কোরিয়ার কিশোরের

প্রকাশিত: ডিসে ৬, ২০২১ / ০৪:১৩অপরাহ্ণ
নিষিদ্ধ ছবি দেখায় ১৪ বছরের কারাদণ্ড উত্তর কোরিয়ার কিশোরের

উত্তর কোরিয়ায় গুচ্ছ গুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা জারি করে রেখেছে কিম জং উনের সরকার। আর এবার মাত্র ৫ মিনিটের জন্য নিষিদ্ধ সিনেমায় দেখায় ১৪ বছর কারাদণ্ড হল মাত্র ১৪ বছরের কিশোরের। কিমের দেশ থেকে সামনে এসেছে এরকমই চাঞ্চল্যকর তথ্য।

ইন্টারনেট ঘাঁটতে ঘাঁটতে আচমকাই ‘দ্য আঙ্কেল’ নামে একটি ছবি দেখে ফেলেছিল অভিযুক্ত কিশোর। তাও বেশিক্ষণের জন্য নয়। মাত্র ৫ মিনিটের জন্য এই ছবিটি দেখেছিল সে। এর পরেই স্কুল থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ওই কিশোরকে। গত ৩০ নভেম্বর গ্রেপ্তার করা হয়েছে ওই নাবালককে।

উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার সম্পর্ক এক কথায় আদায় কাঁচকলায়। এবং লাগাতার কিম জন উনের বিশ্বশান্তি ভঙ্গে পদক্ষেপ গ্রহণ করায় এই দেশের উপর রেগে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও। তাই মূলত দক্ষিণ কোরিয়ান এবং আমেরিকান যেকোনো সাংস্কৃতিক বিষয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকাকে তারা শত্রু দেশ হিসেবে গণ্য করে। সেই কারণেই দক্ষিণ কোরিয়ান সিনেমা দেখার অপরাধে মাত্র ১৪ বছর বয়সী নাবালক কিশোরকে ১৪ বছরের জন্য জেলে ঢুকিয়েছে সেই দেশের পুলিশ।

তবে এই প্রথম নয়। এর আগেও একাধিকবার কিম জং উনের বেশ কিছু আজব নিয়মের চিত্র সামনে এসেছে। মাস কয়েক আগে স্কুলের সব ক্লাসরুমে কিমের ছবি টানিয়ে রাখার ছবি ভাইরাল হয়েছিল। অবশ্য সেই ছবির সত্যতা যাচাই করেনি সংবাদ মাধ্যম। কিন্তু এর পরেও সামনে এসছে বেশ কিছু ঘটনা। সম্প্রতি এটিও রিপোর্ট করা হয়েছিল যে উত্তর কোরিয়া কর্তৃপক্ষ জনগণের জন্য চামড়ার ট্রেঞ্চ কোট নিষিদ্ধ করেছে। কারণ এটি শাসক কিম জং-উনের স্টাইল।

প্রথম ২ বছর আগে কিম এই কোট পড়েছিলেন। তারপরে এটি উত্তর কোরিয়ার এলিট শ্রেণীর মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। নভেম্বরের শুরুতে কিমের বোন ইয়ো জংকে একটি পরতে দেখা যাওয়ার পরে পোশাকটি সে দেশের বিত্তশালী মহিলাদের মধ্যেও জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তাই তারা ছাড়া সাধারণ কেউ এই পোশাক পড়লে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়ছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন