পাকিস্তানের পতাকায় আগুন দিয়ে যুব সংগঠনের বিক্ষোভ

প্রকাশিত: নভে ২৪, ২০২১ / ১১:১৩অপরাহ্ণ
পাকিস্তানের পতাকায় আগুন দিয়ে যুব সংগঠনের বিক্ষোভ

ক্রিকেট মাঠে সমর্থনের নামে পাকিস্তানি প্রেতাত্মাদের পতাকা উড়ানো ও জার্সি পরিধানের প্রতিবাদে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকায় অগ্নিসংযোগ করেছে বিভিন্ন যুব সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

পাকপ্রেমী ও ষড়যন্ত্রকারীদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও ধৃষ্টতার প্রতিবাদে পাকিস্তানের প্রতি ঘৃণা প্রদর্শনে এ ধরণের কার্যক্রম অব্যাহত রাখার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন যুব নেতৃবৃন্দ।

রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল শেষে আজ বুধবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পাকিস্তানের পতাকায় অগ্নিসংযোগ করা হয়। এরআগে বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্সের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ,

জাতীয় যুব জোট সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকন, বাংলাদেশ যুব আন্দোলন সহ-সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন সৈকত, জাতীয় যুব ঐক্য সভাপতি খায়রুল আলম, বাংলাদেশে যুব মৈত্রীর সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক ও কায়সার আলম। সঞ্চালনা করেন যুব মৈত্রীর সহ-সাধারণ সম্পাদক তাপস দাস।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, পুরো ঘটনায় বিসিবি ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী দায় এড়াতে পারে না। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী ক্ষোভ জানিয়ে একটা বিবৃতিও দেননি। পরারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের খেলোয়াড়দের আমার দেশের মাটিতে পতাকা পুতে অনুশীলন ও আমাদের খেলোয়াদের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের জন্য বাংলাদেশে নিযুক্ত পাকিস্তানি হাইকমিশনারকে তলব করে জোরালো প্রতিবাদ জানানো উচিত ছিলো।

ভাড়াটে দর্শক যারা সেইদিন গ্যালারিতে পাকিস্তনি পতাকা উড়ানো এবং জার্সি গায়ে প্রদর্শন করলো, তারা অবশ্যই রাষ্ট্রদ্রোহীতার অপরাধে অপরাধী। এখনো পর্যন্ত সেই দর্শকদের কাউকেই গ্রেপ্তার ও বিচারে আওতায় আনা হয় নি যা অত্যান্ত দুঃখজনক।

নেতৃবন্দ আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতাসীন, মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী চলমান থাকা অবস্থায় এ ধরণের পাকিস্তানি অপতৎপরতা জাতিকে হতাশ করেছে। পাকিস্তানি ভাবাদর্শ প্রতিষ্ঠায় দেশের মধ্যে ষড়যন্ত্রকারীদের অবিলম্বে চিহ্নিত করে বিচারের আওতার আনার দাবি জানান তারা।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন