ডেঙ্গু প্রতিরোধ সম্ভব যদি সবাই সচেতন হয়

প্রকাশিত: জুলা ৩০, ২০২১ / ০৭:১৬অপরাহ্ণ
ডেঙ্গু প্রতিরোধ সম্ভব যদি সবাই সচেতন হয়

করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের মধ্যেই রাজধানীতে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়তে শুরু করেছে। ডেঙ্গু জ্বরে যখন সারা দেশ কাঁপছে তখন ডেঙ্গুবাহী এডিস মশা দমনে উদ্যোগ নিল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘মাঞ্জা’।

সংগঠনের উদ্যোগে স্বেচ্ছাসেবকরা মশন নিধন ওষুধ ছিটাচ্ছেন রাজধানীর পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকায়। সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, সরকার এবং সেবা সংস্থাগুলোর পাশাপাশি ডেঙ্গু বিপর্যয় ঠেকাতে তাদের এ উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

মাঞ্জার এ উদ্যোগের কাজ দেখে সেসব এলাকা থেকে অনেক শুভ কামনা জানানো হয়। বিশেষ করে ডেঙ্গু প্রতিরোধে স্বেচ্ছাসেবকরা মশক নিধনের ওষুধ ছিটাচ্ছে, এমন কার্যক্রম বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে।

মশক নিধন কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবকরা জানান, সেবা সংস্থাগুলোর দিকে তাকিয়ে না থেকে নিজের আশপাশে প্রতিদিন পাঁচ মিনিট সময় দিলেই ডেঙ্গুর প্রজনন বন্ধ করা সম্ভব।

মশক নিধনের কার্যক্রম উদ্ভোধন করেন মাঞ্জার সন্মানিত উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী সচিব রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ (রিন্টু) তিনি বলেন, সবাই যদি নিজ নিজ জায়গা থেকে এগিয়ে আসে আর সচেতন হয় তাহলে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করা সম্ভব।

সংগঠনের সদস্য সহিদুল ইসলাম সাজ্জাদ বলেন, ‘আমরা প্রথমে এলাকাবাসীকে ডেঙ্গু সম্পর্কে সচেতন করেছি। মাইকিংয়ের মাধ্যমে এ বিষয়ে জানিয়েছি। এরপরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে কী করতে হবে, ডেঙ্গু হলে কী করতে হবে এ সম্পর্কে বুঝিয়েছি। এ সম্পর্কিত লিফলেটও আমরা জুম্মার নামাজ শেষে মসজিদে এবং এলাকার বিভিন্ন স্থানে বিতরণ করেছি।

পুরান ঢাকার সূত্রাপুরে অবস্থিত শিংটোলায় এলাকায় পবিত্র জুম্মার নামাজ শেষে লিফলেট বিতরণ করে মশক নিধন ওষুধ ছিটিয়ে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়। সেখানে আরো বলা হয় মাঞ্জার অর্থায়নেই এই কার্যক্রম করা হয়েছে। এই ধরনের কর্মসূচি আমরা নিয়মিত করার চেষ্টা করবে বলে জানানো হয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন